কাবা শরিফের গিলাফ সেলাই করলেন সানা খান

সানা খান ছিলেন অভিনেত্রী। বলিউডের বেশ কিছু সিনেমায় দেখা গেছে তাকে। স্বল্প পোশাকে, খোলামেলা রূপে অভিনয় করতেন। আবার সোশ্যাল মিডিয়ায়ও নিজের শরীরী আবেদন ছড়িয়ে দিতেন। কিন্তু আচমকাই এক মুফতিকে বিয়ে করে ইসলামী রীতিতে জীবনযাপন শুরু করেন।

কাবা শরিফের গিলাফ সেলাই করলেন সানা খান

বিয়ের পর থেকে বিনোদন জগত থেকে নিজেকে একেবারে সরিয়ে নেন সানা। স্বামী মুফতি সৈয়দ আনাসের সঙ্গে সংসার নিয়েই ব্যস্ত আছেন। বোরকা-হিজাব পরে বিভিন্ন সময় ছবি শেয়ার করেন। সঙ্গে জুড়ে দেন ধর্মীয় বার্তা। এবার সানা খানকে দেখা গেল পবিত্র কাবা শরিফের গিলাফ সেলাই করতে।

যেকোনো মুসলিমের জন্যই এটা বড় প্রাপ্তি। সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে ভিডিও পোস্ট করে এই খবর জানান তিনি। ভিডিওতে দেখা যায়, কাবার কালো গিলাফে সোনালি সূতোর বুননে অংশ সুঁই ফুঁড়ছেন। এই সুযোগ পেয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত সানা। ইনস্টা অ্যাকাউন্টে লিখেছেন,

‘আমি স্বপ্নেও কখনও ভাবিনি যে, আল্লাহ তায়ালা আমার জন্য এত বড় সৌভাগ্য লিখে রেখেছেন যে, আমি কাবা শরিফের গিলাফ সেলাইয়ের মহান কাজে অংশ নিতে পারবে। আল্লাহ অনেক দয়ালু।’ বিরল এ কাজের সুযোগ করে দেওয়ায় সৌদি সরকারকেও ধন্যবাদ জানান সানা খান।

একইসঙ্গে স্বামীর প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানান প্রাক্তন অভিনেত্রী। কিছুদিন আগেই সানার বিবাহবার্ষিকী ছিল। ওই সময় স্বামীর সঙ্গে তোলা একটি ছবি পোস্ট করে কাবায় যাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেন তিনি। তখন লিখেছিলেন, ‘আপনি আমাকে আল্লাহর কাছাকাছি নিয়ে যান, পাপের কাছে নয়।

আপনি অপেক্ষার যোগ্য ছিলেন। প্রথম বিবাহবার্ষিকীর অনেক শুভেচ্ছা। সৈয়দ আনাস, পেছনের ছবির (কাবা শরীফ) মতো বাস্তবে সবকিছু হওয়ার জন্য অপেক্ষা সইছে না। ইনশাআল্লাহ।’ সানার সেই ইচ্ছে এত দ্রুত পূরণ হবে, এবং কাবার গিলাফ পর্যন্ত সেলাইয়ের সুযোগ পাবেন, সেটা হয়ত ভাবতেও পারেননি তিনি।

উল্লেখ্য, ২০০৫ সালে ‘ইয়ে হ্যায় হাই সোসাইটি’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন সানা খান। এরপর ১৪টি সিনেমায় কেন্দ্রীয় নারী চরিত্রে অভিনয় করেন। তবে ছোট চরিত্র, গান মিলিয়ে ৫০টির বেশি সিনেমায় তাকে দেখা গেছে।

Share

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published.